জাতীয়

Elivated

ষ্টাফ রিপোর্টার: গভীর রাতেও চলছে ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে প্রকল্পের কাজ। শনিবার দিনগত রাত ২টার দিকে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের সামনে এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে প্রকল্প এলাকায় গিয়ে দেখা গেলো পুরোদমে কাজ চলছে।

প্রকল্প এলাকার নিরাপত্তা কর্মকর্তা শামীম হোসেন  জানান, এখন রাতদিন কাজ চলছে। মূলত এখানে ঢালাইয়ের জন্য মসলা প্রস্তুত করা হয়। এ মসলা রাজধানীর বিভিন্ন অঞ্চলে এ প্রকল্পের জন্য নির্ধারিত স্থানে নিয়ে যাওয়া হয়। বেশ কিছু এলাকায় পাইলিং-এর কাজে চলছে এ মসলা দিয়েই।

তিনি জানান, কিছুদিন আগেই এখানে নির্মাণকাজের জন্য ভারী যন্ত্রপাতি আনা হয়েছে। এগুলো  দিয়ে পুরোদমে কাজ চলছে। এজন্য প্রি-কাস্ট ইয়ার্ড তৈরি করা হয়েছে। ওই ইয়ার্ডে এক্সপ্রেসওয়ের গার্ডার তৈরি করা হবে। পরে তা নিয়ে মূল কাঠামোর সঙ্গে সংযুক্ত করা হবে।

এটির নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ইতাল-থাই ডেভেলপমেন্ট কোম্পানি। এখানে প্রায় চারশ’ কর্মী রাতদিন কাজ করে বলেও জানান শামীম।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, প্রকল্পের প্রথম অংশে বিমানবন্দর থেকে বনানী ওভারপাস পর্যন্ত সাত দশমিক ৪৫ কিলোমিটারের মধ্যে ২৩৩টি পায়ার বসবে। প্রকল্পের দ্বিতীয় ভাগে বনানী থেকে তেজগাঁও অংশের অধিগ্রহণ করা জমি থেকে বিভিন্ন স্থাপনা সরিয়ে নেওয়ার কাজও চলছে। প্রকল্পের তৃতীয় অংশের (মগবাজার থেকে কুতুবখালী) জমি অধিগ্রহণও শেষ হয়েছে।

 ২০২০ সালের মধ্যে এ প্রকল্পের কাজ শেষ করার সময় নির্ধারণ করে দিয়েছে সরকার।
সরকারি-বেসরকারি অংশীদারিত্বের (পিপিপি) এ প্রকল্পে বিনিয়োগ ও নির্মাণ কাজের দায়িত্বে আছে ইতাল-থাই ডেভেলপমেন্ট কোম্পানি। শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে কুড়িল, বনানী, মহাখালী, তেজগাঁও, মগবাজার, কমলাপুর, সায়েদাবাদ ও যাত্রাবাড়ী হয়ে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুতুবখালী এলাকায় গিয়ে পড়বে ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে। এর মূল লাইনের দৈর্ঘ্য বিমানবন্দর থেকে কুতুবখালী পর্যন্ত ১৯ দশমিক ৭৩ কিলোমিটার।

প্রকল্প এলাকাকে তিন অংশে ভাগ করা হয়েছে। প্রথম অংশে বিমানবন্দর থেকে বনানী পর্যন্ত সাত দশমিক ৪৫ কিলোমিটার, দ্বিতীয় অংশে বনানী থেকে মগবাজার পর্যন্ত পাঁচ দশমিক ৮৫ কিলোমিটার এবং তৃতীয় অংশে মগবাজার থেকে কুতুবখালী পর্যন্ত ছয় দশমিক ৪৩ কিলোমিটার। প্রকল্প বাস্তবায়নে ব্যয় ধরা হয়েছে আট হাজার ৯৪০ কোটি টাকা। এর মধ্যে দুই হাজার ৪১৩ কোটি টাকা দেবে সরকার। বাকি টাকা নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ইতাল-থাই বিনিয়োগ করবে। এক্সপ্রেসওয়ে চালু হলে ২৫ বছর পর্যন্ত টোল আদায় করবে ইতাল-থাই।

ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণের জন্য ২০১১ সালের ১৯ জানুয়ারি ইতাল-থাইয়ের সঙ্গে প্রথম চুক্তি করে সেতু বিভাগ। সে বছর ৩০ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন।

বিস্তারিত

আন্তর্জাতিক

dog

যুক্তরাজ্যের সর্বোচ্চ সামরিক সম্মাননা ডিককিন মেডেল পাচ্ছে দেশটির স্পেশাল ফোর্সের একটি কুকুর। আফগানিস্তানে দায়িত্ব পালনকালে বিভিন্ন অভিযানে শতাধিক সেনাকে বাঁচানোর স্বীকৃতিস্বরূপ শুক্রবার তাকে এ মেডেল দেওয়া হয়। বেলজিয়ামের মলিনোইন প্রজাতির কুকুরটির নাম মালি। যুক্তরাজ্যের ভিক্টোরিয়া ক্রস সম্মাননার সমতুল্য পিডিএসএ ডিককিন মেডেলে ভূষিত করা হয় কুকুরটিকে।

সম্মুখ যুদ্ধে ব্যাপক সাহসিকতা ও বীরত্বের জন্য সেনাদের ভিক্টোরিয়া ক্রস পদক দেওয়া হয়। মালি নামের কুকুরটিকে এর সমতুল্য পিডিএসএ ডিককিন মেডেল দেওয়ার কারণ ২০১২ সালে আফগানিস্তানে তার অনন্য ভূমিকা। ওই বছর দেশটিতে গুরুত্বপূর্ণ এক সামরিক অভিযানে তালেবানদের একটি ফাঁদ শনাক্ত করতে সক্ষম হয় সে। ঘ্রাণ শুঁকেই সে ওই ফাঁদের বিষয়টি বুঝতে পারে।

কাবুলের একটি টাওয়ার থেকে জঙ্গিদের উৎখাতে ওই অভিযানে সেনাবাহিনীর সঙ্গে আট বছরের কুকুরটিও অংশ নেয়। গুরুতর আহত অবস্থায়ও সে সেনাদের সহায়তা অব্যাহত রাখে।

স্পেশাল বোট সার্ভিসের (এসবিএস) অভিযানে অংশ নিয়ে অনেক ব্রিটেন ও আফগান সেনাদের জীবন বাঁচানোর জন্য কুকুরটিকে কৃতিত্ব দেওয়া হয়।

অসুস্থ জীবজন্তুর জন্য গঠিত পিপলস ডিসপেনসারির দাতব্য পশুচিকিৎসা বিভাগের মহাপরিচালক জান ম্যাকলাওলিন বলেন, ‘মারাত্মকভাবে আঘাত পেয়েও কুকুরটি তার নির্দেশদাতার পাশেই অবস্থান করছিল এবং সেনাদের দায়িত্ব পালনে সহায়তা করছিল। এটাই হলো কাজের প্রতি কুকুরটির শ্রদ্ধা ও ভক্তি।’

কাবুলের একটি টাওয়ারে অবস্থান করা সুইসাইড স্কোয়াডের কাছ থেকে অস্ত্র ছিনিয়ে আনা এবং তালেবানদের আক্রমণ থেকে ওই এলাকাকে নিরাপদ রাখাই ছিল মিশনের প্রধান উদ্দেশ। মালি (কুকুর) ওই অভিযানের একটি অংশ ছিল।

অভিযানের সময় কুকুরটি সামরিক বাহিনীর এক কর্মকর্তার পাশেই অবস্থান করছিল। যদিও ওই কর্মকর্তার নাম প্রকাশ করা হয়নি।  যাকে ওই টাওয়ারে বিস্ফোরক খোঁজার জন্য অভিযানে সম্মুখভাগে সরাসরি গুলি করার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। তিনি সফলতার সঙ্গে কয়েবার জঙ্গিদের অবস্থান সম্পর্কে নির্দেশনা দিতে পেরেছিলেন। যাতে তার পেছনে থাকা দলটি শত্রুদের সঙ্গে যুদ্ধে চূড়ান্ত জয়লাভ করতে পারে।

অভিযানের  সময় মালি তিনটি গ্রেনেড বিস্ফোরণে মারাত্মকভাবে আহত হয়। যার প্রথম দুটি বিস্ফোরণে মালির বুক, মুখ এবং পেছনের এক পাশের পায়ে আঘাত লাগে। আর শেষের ডেটোনেট বিস্ফোরণে মালির মুখে আঘাত লাগে। যাতে সে তার সামনের দাঁতগুলো হারায় এবং তার ডান কান ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

কুকুরটির বর্তমান নির্দেশক বা নির্দেশদাতা করপোরেল ডানিয়েল হ্যাটলে বলেন, ‘আমি মালিকে নিয়ে গর্ববোধ করি। সম্মুখযুদ্ধে অংশ নিয়ে সে আমার সহকর্মীদের জীবন বাঁচিয়েছে। এ পুরস্কার পাওয়ার মাধ্যমে ওইদিন অভিযানে অংশ নেওয়া ফোর্সের মধ্যে মালির ভূমিকার স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে।’

বর্তমানে কুকুরটিকে অভিযানের সম্মুখভাগের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। এখন মালি ও তার নির্দেশক হ্যাটলে লিচেস্টারসায়ারের সামরিক এনিমেল সেন্টারে নতুন নির্দেশদাতাদের প্রশিক্ষণে কাজ করছে।

হাতে তৈরি বোমা এবং বিস্ফোরক শনাক্তের কাজে আফগানিস্তানে বিভিন্ন অভিযানে কুকুরকে অত্যন্ত ‍গুরুত্বপূর্ণ অংশ মনে করা হয়। স্পেশাল ফোর্স বিভিন্ন অভিযানে নিয়মিত কুকুর ব্যবহার করে।

জানা গেছে, ১৯৪৩ সাল থেকে ডিককিন মেডেল পুরস্কার দেওয়া শুরু করেন পিপলস ডিসপেনসারির দাতব্য পশুচিকিত্সা বিভাগের প্রতিষ্ঠাতা মারিয়া ডিককিন। এর আগে বিভিন্ন অভিযানে ভূমিকা রাখায় ৩২টি কবুতর, ৩১টি কুকুর, চারটি ঘোরা ও একটি বিড়ালকে এ পুরস্কারে ভূষিত করা হয়।

বিস্তারিত

উত্তরার খবর

chor
গাজী তারেক রহমান (উত্তরা প্রতিনিধি):  বেলা ১২টা। জাহাঙ্গীর তার মুখ পরিচিত সাহাবুদ্দিন (২৮) কে নিয়ে উত্তরায় মামার সাথে দেখা করতে আসে। উত্তরায় মামার অফিসের সামনে গাড়ি রেখে সাহাবুদ্দিনকে নিয়ে অফিসের ভেতরে গেলে সাহাবুদ্দিন জাহাঙ্গীর কাছ থেকে মটরসাইকেলের চাবিটি নিয়ে উধাও হয়ে যায়। এ ব্যাপার সন্ধ্যা ৬টায় জাহাঙ্গীর উত্তরা পশ্চিম থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। অত্র অভিযোগে উল্লেখ্য করেন-  “আমি আজ বেলা ১২ঘটিকায় মামার সাথে দেখা করার জন্য উত্তরা পশ্চিম থানাস্থিত  ১২ নং সেক্টর ১নং রোডের ৯০ নং প্লট (আবু হোরায়রা অটোমোবাইলস্) এ আসি। এসময় আমার সাথে থাকা দুঃসম্পর্কের পরিচিত সাহাবুদ্দিন, বয়স- আনুমানিক-২৮ বৎসর নামক ব্যক্তিটি আমাকে বলে “ভাই ১০ মিনিটের জন্য আমাকে মোটর সাইকেলের চাবিটি দিন, আমি একজনের সাথে দেখা করে আসি”। এই বলে সাহাবুদ্দিন আমার কাছ হতে মোটরসাইকেলটি নিয়ে চলে যায়। কিন্তু ঘন্টার পর ঘন্টা আমি অত্র (আবু হোরায়রা অটোমোবাইলস্) এ মোটরসাইকেলের জন্য অপেক্ষা করার পরেও সাহাবুদ্দিনের কোন দেখা মিলেনি। অতঃপর আমি সাহাবুদ্দিনের ব্যক্তিগত মোবাইল ফোন (০১৭৭৬১৩৫৭৫৩, ০১৯৫০৪৮৬২৮৩) এ ফোন দিলে সে আমার ফোন রিসিভ করেনি। বর্তমানে সাহাবুদ্দিনের ফোন বন্ধ আছে। আমার জানামতে সাহাবুদ্দিন গাজীপুরের পূবাইল নামক স্থানে মামার বাসায় থাকেন। বেলা ১২টা হতে বর্তমান সময় পর্যন্ত সাহাবুদ্দিনের জন্য অপেক্ষা করতে করতে বর্তমানে তার প্রতি আতœবিশ্বাস হারিয়ে ফেলিছি বিধায় আপনার থানায় এব্যাপারে একটি অভিযোগ দায়ের করছি। সে গাড়িটি নিয়ে যাওয়ার সময় গাড়িতে থাকার সকল কাগজ-পত্র ও আমার ব্যক্তিগত ড্রাইভিং লাইসেন্সটিও গাড়িতে ছিল।”
 
হয়রানি ও বিশ্বাসঘাতকতার শিকার হওয়া জাহাঙ্গীর দেশবাসীর নিকট আবেদন জানিয়ে বলেছেন, অত্র বিশ্বাসঘাতক সাহাবুদ্দিনকে যেখানেই পাওয়া যাক, তাকে নিকটস্থ থানা পুলিশে ধরিয়ে দিন।
 
সর্বশেষ, সাহাবুদ্দিনকে কোথাও পাওয়া গেলে থানা সহ মটরসাইকেলটির মালিক জাহাঙ্গীরের নিকট ফোন (০১৭৭৬৬০৭১০৬) দেওয়ার জন্য সকলকে আহ্বান করা যাচ্ছে। 

বিস্তারিত

বিনোদন

Quine

শনিবার (১৮ নভেম্বর) বাংলাদেশ সময় রাত সোয়া ৮টার দিকে চিনের সানাইয়া সিটি এরেনার মঞ্চে তার মাথায় মুকুট পরিয়ে দেন গতবারের বিশ্বসুন্দরী স্টেফানি দেল ভালে।
এবার ছিল প্রতিযোগিতার ৬৭তম আসর। শনিবার রাতে এর চূড়ান্ত ফল ঘোষণা করা হয়। ১১৭ দেশের সুন্দরীকে হটিয়ে সেরার স্বীকৃতি পেলেন মিস ইন্ডিয়া। ভারতের এই রূপসীর সৌন্দর্য ও মেধার কাছে হার মানলেন সবাই।

ফাইনালে বিচারকরা মানসী চিল্লারকে প্রশ্ন করেন, কোন পেশায় সবচেয়ে বেশি বেতন থাকা উচিত ও কেন। তার উত্তর ছিল, ‘সব মায়েদেরই সর্বোচ্চ সম্মান প্রাপ্য। তবে এখানে বেতন বা সম্মানী কাগজের নোটে মাপা যাবে না। ভালোবাসা আর সম্মানই তাদের বেলায় মুখ্য।’

এ নিয়ে ১৭ বছর পর আবারও বিশ্বসুন্দরীর মুকুট গেলো ভারতে। সবশেষ ২০০০ সালে এই খেতাব জিতেছিলেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। সব মিলিয়ে ঐশ্বরিয়া রাই, ডায়ানা হেডেনসহ ভারতীয় সুন্দরীরা ছয়বার মুকুটটি মাথায় তুলতে পেরেছেন।

মানসীর জন্ম ১৯৯৭ সালের ১৪ মে। ভারতের হরিয়ানা রাজ্যের মেয়ে তিনি। তার উচ্চতা ১৭৫ সেন্টিমিটার।
তিনি মেডিক্যালের ছাত্রী। মেডিসিন ও সার্জারি বিষয়ে ব্যাচেলর’স ডিগ্রি নিচ্ছেন। কার্ডিয়াক সার্জন হওয়ার লক্ষ্য নিয়ে এগোচ্ছেন তিনি। প্রত্যন্ত অঞ্চলে অলাভজনক হাসপাতাল গড়ার ইচ্ছা আছে তার।
ভারতীয় শাস্ত্রীয় নৃত্যে তালিম নিয়েছেন মানসী। স্কেচ ও আঁকাআঁকি উপভোগ করেন তিনি। তার কথায়, ‘স্বপ্ন দেখা থামানো অর্থ হলো বেঁচে থাকার আশা ছেড়ে দেওয়া।’
এবারের প্রতিযোগিতায় প্রথম রানারআপ হয়েছেন মেক্সিকোর আন্ড্রিয়া মেজা। তৃতীয় হন ইংল্যান্ডের স্টেফানি হিল।
পিপল’স চয়েস অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন মিস মঙ্গোলিয়ার ইঙ্কজিন টেভিনড্যাশ। এ পুরস্কারের জন্য মনোনীত শীর্ষ দশে ছিলেন ভারতের মানসী চিল্লার এবং বাংলাদেশের জেসিয়া ইসলামও।
এর আগে প্রতিযোগিতার সেরা পাঁচে পৌঁছেন ভারতের মানষী চিল্লার, ইংল্যান্ডের স্টেফানি হিল, ফ্রান্সের অরোরে কিশেনিন, কেনিয়ার ম্যাগলিন জেরুতো ও মেক্সিকোর আন্ড্রিয়া মেজা।
এদিকে ফাইনালের আগে মাল্টিমিডিয়া চ্যালেঞ্জে জিতেছেন মিস মঙ্গোলিয়া। বিউটি উইথ অ্যা পারপাসে নির্বাচিত হয়েছেন ভারত, দক্ষিণ আফ্রিকা, ভিয়েতনাম, ইন্দোনেশিয়া ও ফিলিপাইনের সুন্দরীরা।
ফাইনালে সংগীত পরিবেশন করেন বুলগেরিয়ার কিশোর ক্রিস্তিয়ান কস্তোভ, চীনের বালক জেফ্রি লি ও বালিকা সেলিন ট্যাম।
অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করেন সাবেক বিশ্বসুন্দরী মেগান ইয়াং।

বিস্তারিত

খেলাধুলা

dhaka

টেস্ট এবং ওয়ানডে সিরিজে লজ্জাজনকভাবে হোয়াইটওয়াশ হওয়ার পর প্রথম টি-টোয়েন্টিতে ঘুরে দাঁড়ানোর ইঙ্গিত দিয়েছিল টাইগাররা। আশা ছিল, এখান থেকে পাওয়া আত্মবিশ্বাস দিয়ে দ্বিতীয় তথা শেষ টি-টোয়েন্টিতে ভালো কিছু করার।

কিন্তু কোথায় কী! ডেভিড মিলারের অতিমানবীয় ইনিংসে ২২৪ রানের পাহাড় গড়ল স্বাগতিকরা। সেই রান তাড়া করতে নেমে ৮৩ রানের বড় ব্যবধানে পরাজিত হলো সাকিব আল হাসানের দল। তিন ফরম্যাটের একটি ম্যাচও না জিতে দেশে ফেরার বিমান ধরতে হচ্ছে টাইগারদের।

বাংলাদেশের ব্যাটিং যেন আজ ৫ বছর আগে ফিরে গেল। প্রোটিয়াদের দেওয়া রানের পাহাড় টপকাতে গিয়ে দলীয় ৩৭ রানেই প্যাভিলিয়নে ফিরেন শীর্ষ ৪ ব্যাটসম্যান। ইমরুল (৬), অধিনায়ক সাকিব (২), মুশফিকুর রহিম (২) আর সাব্বির ৫ রান করে প্যাভিলিয়নের পথ ধরেন। স্রোতের বিপরীতে একপ্রান্ত আগলে রেখে লড়াই করে যাচ্ছিলেন ওপেনার সৌম্য সরকার। খেলেছিলেন দৃষ্টিনন্দন কিছু শট। অ্যারন ফাঙ্গিসোকে উড়িয়ে মারতে গিয়ে সীমানায় হেনড্রিক্সের তালুবন্দী হয়ে শেষ হলো তার ২৭ বলে ৬ বাউন্ডারি আর ১ ওভার বাউন্ডারিতে ৪৪ রানের ইনিংস।

সৌম্য আউট হওয়ার পর দ্রুত প্যাভিলিয়নের পথ ধরলেন লিটন দাস (৯) এবং অভিজ্ঞ মাহমুদ উল্লাহ রিয়াদ (২৪)। অষ্টম ব্যাটসম্যান হিসাবে ফিলোকায়োর বলে ক্যাচ দিরেন ১৩ রান করা মেহেদী মিরাজ। ১ চার ১২ ছক্কায় ২৩ রান করলেন সাইফ উদ্দিন; কিন্তু বল ব্যয় করলেন তার চেয়ে বেশি, ২৬টি। তাসকিনের (৪) রান-আউটে ১৮.৩ ওভারে ১৪১ রানেই শেষ হলো বাংলাদেশের ইনিংস। প্রোটিয়া বাহিনী জয় তুলে নিল ৮৩ রানে। প্রথম টি-টোয়েন্টির মত আজও দলের হয়ে সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত রান করলেন সৌম্য সরকার।

এর আগে পচেফস্ট্রুমে আজ রবিবার টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে ৪ উইকেটে ২২৪ রানের পাহাড় গড়ে দক্ষিণ আফ্রিকা। যদিও শুরুতেই ব্রেক থ্রু এনে দিয়েছিলেন অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। দলীয় ২৩ রানে সাকিবের বলে বোল্ড হয়ে যান ম্যাঙ্গালিসো মোসেলে (৫)। পরের ওভারে বল করতে এসে অধিনায়ক জেপি ডুমিনিকেও (৪) বোল্ড করে দেন বিশ্বসেরা অল-রাউন্ডার। মারকুটে এবি ডি ভিলিয়ার্স তাণ্ডব শুরু করার আগেই (২০) তরুণ সাইফউদ্দিনের বলে ইমরুল কায়েসে তালুবন্দী হন।

অন্যপ্রান্তে ব্যাট চালিয়ে খেলছিলেন হাশিম আমলা। এক পর্যায়ে মনে হচ্ছিল সেঞ্চুরিটা এবার পেয়েই যাবেন। কিন্তু ৫১ বলে করেছিলেন ৮৫ রান করার পর তাকে সৌম্য সরকারের ক্যাচে পরিণত করলেন সাইফ উদ্দিন। তবে সব শেষ করে দেন 'কিলার মিলার' খ্যাত ডেভিড মিলার। সাইফ উদ্দিনের এক ওভারে ৫ ছক্কা হাঁকিয়ে ৩৫ বলে সেঞ্চুরি করেন তিনি। টি-টোয়েন্টির ইতিহাসে যা দ্রুততম। ৩৬ বলে অপরাজিত ১০১ রানের ইনিংসে ছিল ৭টি চার এবং ৯টি ছক্কা।

বিস্তারিত

বিচিত্র খবর

Kim

নিজ বাড়িতে আত্মহত্যা কললেন সাবেক মিস ইন্ডিয়া ট্রিনিদাদ অ্যান্ড টোবাগো ২০১৩  এর ফাইনালিস্ট। সাবেক এই সুন্দরীর নাম কিম্বার্লি তেলুকসিং।

পরিবারের প্রিন্সেস টাউনের বাড়িতে তার ঝুলন্ত মৃতদেহ পাওয়া যায়। গলায় ফাঁস নিয়েছিলেন তিনি। ইউনিভার্সিটি অব দ্য ওয়েস্ট ইন্ডিজ পড়ছিলেন। তার গ্র্যাজুয়েশন শেষের দিকে ছিল। হাতপাতালে নেওয়া হলে ২৪ বছর বয়সী তেলুকসিংকে মৃত ঘোষণা করেন ডিস্ট্রিক্ট মেডিক্যাল অফিসার।  

 সাবেক এই বিউটি কুইনের বাড়িতে বিকালের দিকে লোকজন ভীড় করেন। তার এক আত্মীয় তাকে সিলিংয়ের গলার দড়ি নিয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় খুঁজে পান। ২০১০ সালের তিনি ত্রিনিদাদ অ্যান্ড টোবাগো ইয়ুথ পার্লামেন্টের বিরোধীদলীয় নেত্রী ছিলেন। ইয়ুথ অ্যাম্বাসাডরের সদস্যও ছিলেন তিনি।

 মিস ইন্ডিয়া ত্রিনিদান অ্যান্ডো টোবাগো সংস্থার পরিচালক মাহিন্দ্র রামপারসাদ বলেন, কিম্বার্লির মৃত্যুতে তিনি হচকিত হয়ে পড়েছেন। ওই সৌন্দর্য প্রতিযোগিতার প্রশিক্ষণ শিবিরে তেলুকসিং অনেক কিছুই শিখেছেন। ব্যক্তিস্বাতন্ত্র্যবোধ বিকশিত হয় সেখানেই। আজ এই সংস্থা আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে বলতে পারে যে, কিম্বার্লি একজন যোগ্য ফাইনালিস্ট হিসেবে নিজের মেধা দেখিয়েছিলেন। তার শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছে ত্রিনিদাদ অ্যান্ড টোবাগো অর্গানাইজেশন পরিবার।  
সূত্র : ইন্ডিয়া টাইমস 

বিস্তারিত

ছবিঘর

medialinks MAMS image
image



© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
উত্তরা নিউজ ২০১৩-২০১৭