উত্তরা থানা (পূর্ব ও পশ্চিম – ঢাকা মেট্রোপলিটন) আয়তন: ৩৬.৯১ বর্গ কিমি। অবস্থান: ২৩°৫১´ থেকে ২৩°৫২´ উত্তর অক্ষাংশ থেকে ৯০°২২´ থেকে ৯০°২৪´ পূর্ব দ্রাঘিমাংশ। সীমানা: উত্তরে তুরাগ থানা ও গাজীপুর সদর উপজেলা, দক্ষিণে বিমানবন্দর ও পল্লবী থানা, পূর্বে দক্ষিণখান থানা, পশ্চিমে পল্লবী ও তুরাগ থানা।

জনসংখ্যা ৬৬৬৩৬; পুরুষ ৩৭৩৮২, মহিলা ২৯২৫৪। মুসলিম ৬৪৭৬৯, হিন্দু ১৩৭৬, বৌদ্ধ ৩৪০, খ্রিস্টান ১৩৩ এবং অন্যান্য ১৮।

জলাশয় টঙ্গী খাল উল্লেখযোগ্য।

প্রশাসন উত্তরা থানা গঠিত হয় ১৯৮৮ সালে। ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের উত্তরা মডেল টাউনের নামানুসারে এ থানার নামকরণ করা হয়েছে।

থানা
ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন মহল্লা জনসংখ্যা ঘনত্ব (প্রতি বর্গ কিমি) শিক্ষার হার (%)
শহর গ্রাম শহর গ্রাম
১৩ ৬৬৬৩৬ ১১২৯৫ ৬৫.৬৭
ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন
ওয়ার্ড নম্বর ও ইউনিয়ন আয়তন (বর্গ কিমি) লোকসংখ্যা শিক্ষার হার (%)
পুরুষ মহিলা
ওয়ার্ড নং-১ ৫.৯০ ৩৭৩৮২ ২৯২৫৪ ৬৫.৬৭

সূত্র আদমশুমারি রিপোর্ট ২০০১, বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো।

মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিচিহ্ন ৪ নং সেক্টরের রেলপথ সংলগ্ন গণকবর।

ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান মসজিদ ১০।

শিক্ষার হার, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড় হার ৬৫.৬৭%, পুরুষ ৭১.২৬%, মহিলা ৫৮.৪২%। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ৫, মহিলা মেডিকেল কলেজ ১, মহিলা আইন কলেজ ১, মাধ্যমিক বিদ্যালয় ৫, প্রাথমিক বিদ্যালয় ৭০, মাদ্রাসা ৩। উল্লেখযোগ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান: উত্তরা বিশ্ববিদ্যালয় (২০০৩), রাজউক উওরা মডেল কলেজ (১৯৯৪), ডিপিএস এসটিএস স্কুল।

সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান ক্লাব ২, নাট্যমঞ্চ ১, সংগীত একাডেমি ১, খেলার মাঠ ২, কমিউনিটি সেন্টার ৭।

গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা সিভিল এভিয়েশন অথরিটি অব বাংলাদেশ, বাংলাদেশ ন্যাশনাল ক্যাডেট কোর এর সদর দফতর।

জনগোষ্ঠীর আয়ের প্রধান উৎস কৃষি ২.০৯%, অকৃষি শ্রমিক ৩.৭০%, শিল্প ০.৭২%, ব্যবসা ২০.৩৮%, পরিবহণ ও যোগাযোগ ৬.৬৪%, চাকরি ৩৮.৩৮%, নির্মাণ ৪.৩৩%, ধর্মীয় সেবা ০.১৫%, রেন্ট অ্যান্ড রেমিটেন্স ১.৮২% এবং অন্যান্য ২১.৭৯%।

কৃষিভূমির মালিকানা ভূমি মালিক ৫৮.৬৯%, ভূমিহীন ৪১.৩১%।

প্রধান কৃষি ফসল শাকসবজি।

বিলুপ্ত বা বিলুপ্তপ্রায় ফসলাদি আউস ধান, পাট, গম, তৈলবীজ।

প্রধান ফল-ফলাদিব আম, কাঁঠাল, কলা, জাম, নারিকেল।

যোগযোগ বিশেষত্ব মোট সড়ক ৬৫.২৫ কিমি।

বিলুপ্ত বা বিলুপ্তপ্রায় সনাতন বাহন পালকি, ঘোড়া ও গরুর গাড়ি।

শিল্প ও কলকারখানা পোশাক শিল্প।

কুটিরশিল্প স্বর্ণশিল্প, লৌহশিল্প, হস্তশিল্প, বাঁশের কাজ, বেতের কাজ, কাঁঠের কাজ।

হাটবাজার, শপিং সেন্টার, মেলা বাজার ৪, শপিং সেন্টার ৪, রেস্টুরেন্ট ১৮, আবাসিক হোটেল ২, মেলা ১; বৈশাখী মেলা (ডি আই টি মাঠ)।

প্রধান রপ্তানিদ্রব্য তৈরি পোশাক।

বিদ্যুৎ ব্যবহার এ থানার সবক’টি মহল্লা বিদ্যুতায়ন কর্মসূচির আওতাধীন। তবে ৬৭.২৮% পরিবারের বিদ্যুৎ ব্যবহারের সুযোগ রয়েছে।

পানীয়জলের উৎস নলকূপ ২৭.২৮%, পুকুর ০.৪৮%, ট্যাপ ৬৩.৯২% এবং অন্যান্য ৮.৩২%।

স্যানিটেশন ব্যবস্থা এ থানার ৬৬.৩৫% পরিবার স্বাস্থ্যকর এবং ২৭.৯০% পরিবার অস্বাস্থ্যকর ল্যাট্রিন ব্যবহার করে। ৫.৭৫% পরিবারের কোনো ল্যাট্রিন সুবিধা নেই।

স্বাস্থ্যকেন্দ্র স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ৪, হাসপাতাল ৩, পরিবার পরিকল্পনা কেন্দ্র ২, ক্লিনিক ২।

এনজিও ব্র্যাক। [শরীফ খুরশীদ আলম]

তথ্যসূত্র আদমশুমারি রিপোর্ট ২০০১, বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো; উত্তরা থানার মাঠ পর্যায়ের প্রতিবেদন ২০০৮।