ব্রেক্সিট

যুক্তরাজ্যের জনগণ ইউরোপিয় ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে যাওয়ার (ব্রেক্সিট) পক্ষে তাদের রায় দেয়ার পর বিশ্ব মুদ্রা বাজারে এক ধরনের অস্থিরতা সৃষ্টি হলেও গত একমাস যাবৎ বাংলাদেশের মুদ্রা বাজার প্রায় স্থিতিশীল রয়েছে।

যুক্তরাজ্য গত ২৩ জুন ইউরোপিয় ইউনিয়ন (ইইউ) থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়ার পর প্রথমদিনের লেনদেনে মার্কিন ডলারের বিপরীতে পাউন্ড স্টার্লিং-এর মূল্য ৮ শতাংশ হ্রাস পায়।

এ ছাড়াও গত ৬ জুলাই মার্কিন ডলারের বিপরীতে পাউন্ড স্টালিং-এর মূল্য ৩০ বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন একডলার ২৯ সেন্টে নেমে আসে। পক্ষান্তরে, বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্রে জানা যায়, গত ২৩ জুন পাউন্ড বিক্রি হয়েছে ১০৭ টাকা ২৪ পয়সায়। আর গত বৃহস্পতিবার পাউন্ড বিক্রি হয়েছে ১০৩ টাকা ৫৫ পয়সায়।

এ ব্যাপারে ঢাকায় বিশ্বব্যাংকের মুখ্য অর্থনীতিবিদ ড. জাহিদ হোসেন বাসস’কে বলেন, ‘মুদ্রা বাজারে কোন বড় ধরনের অস্থিরতা দেখা না দেয়ার কারণ হলো দেশের বৈদেশিক মুদ্রা বিনিময় হয় মূলত মার্কিন ডলারের উপর ভিত্তি করে।’

যুক্তরাজ্য ও বাংলাদেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যিক সম্পর্ক খুব ভালো এ কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, পাউন্ডের বিপরীতে টাকার বিনিময় মূল্যের উপর বড় রকমের কোন প্রভাব পড়বে না।

এ ব্যাপারে বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রধান অর্থনীতিবিদ বিরুপাক্ষ পাল বলেন, ব্রেক্সিট গণভোটের কোন নেতিবাচক প্রভাব পড়ে কিনা, সে বিষয়টি কেন্দ্রীয় ব্যাংক পর্যবেক্ষন করছে এবং বৈদেশিক মুদ্রা বাজারে স্বাভাবিক অবস্থা বজায় রাখতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হবে।



উত্তরানিউজ২৪ডটকম / স স

recommend to friends
  • gplus

পাঠকের মন্তব্য

ফেসবুকে আমরা