Nawaz_un

পানামা পেপারস কেলেঙ্কারির মামলায় নওয়াজ শরীফকে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী পদে অযোগ্য ঘোষণা করেছে দেশটির সুপ্রিম কোর্ট। পাঁচ বিচারপতির সুপ্রিম কোর্ট বেঞ্চ সর্বসম্মতিক্রমে শুক্রবার এ আদেশ দিয়েছে।

আদেশে বলা হয়, যৌথ তদন্ত দলের (জিআইটি) সংগৃহীত সব নথিপত্র একটি জবাবদিহি আদালতে ছয় সপ্তাহের মধ্যে পাঠানো হবে।

এই নথিপত্রের ভিত্তিতে নওয়াজ শরীফ এবং তার মেয়ে মারইয়াম নওয়াজ ও ছেলে হোসাইন নওয়াজ, অর্থমন্ত্রী ইসহাক দার, এমএনএ মুহাম্মদ সাফদারের বিরুদ্ধে মামলা করতে হবে এবং ৩০ দিনের মধ্যে রায় দিতে হবে।

এর বাইরে প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফ কার্যালয় পরিচালনায় অযোগ্য হবেন। পার্লামেন্ট এবং আদালতের প্রতি ‘অসৎ হওয়ায়’ তিনি প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের জন্য যোগ্য নন বলে আদেশে উল্লেখ করেন বিচারপতিরা।

এর আগে পানামা পেপারস কেলেঙ্কারির তালিকায় নওয়াজ ও তার পরিবারের নাম থাকায় সুপ্রিম কোর্ট যৌথ তদন্ত কমিটি গঠন করে।

তদন্ত প্রতিবেদনে নওয়াজ শরীফের সম্পদের উৎস সম্পর্কে প্রশ্ন তোলা হয়। এতে বলা হয়, জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদের মালিক নওয়াজ শরীফ ও তার পরিবারের অন্য সদস্যরা। সম্পদের হিসাব চাওয়ার পরও তা দিতে ব্যর্থ হয় নওয়াজ পরিবার।

লন্ডনে নওয়াজ শরীফের পরিবারের কেনা আটটি অ্যাপার্টমেন্টও এ তদন্তের অধীনে রয়েছে। এছাড়া ক্ষমতার অপব্যবহার করে তিনি ও তার পরিবার সম্পদের পাহাড় গড়ছে কিনা সেটিও তদন্তের নির্দেশ দিয়েছিলেন আদালত।

অবশ্য এসব অভিযোগ বরাবরই নাকচ করে আসছেন নওয়াজ শরীফ এবং তার পরিবার। লন্ডনের ফ্ল্যাট কেনার বিষয়ে পাকিস্তান প্রধানমন্ত্রীর দাবি, সেগুলো বৈধভাবেই কেনা। যদিও সেগুলোর কোনোটির তিনি ব্যক্তিগতভাবে মালিক নন।

নওয়াজ শরীফ ক্ষমতা ছাড়লে ২০১৮ সালের সাধারণ নির্বাচনের আগ পর্যন্ত কে প্রধানমন্ত্রী পদে আসীন হবেন তা এখনো পরিষ্কার নয়।



উত্তরানিউজ২৪ডটকম / ডেস্ক রিপোর্ট

recommend to friends
  • gplus

পাঠকের মন্তব্য

ফেসবুকে আমরা