জঙ্গি

র‌্যাব-১১ এর একটি আভিযানিক দল সোমবার রাত ৯টায় ঢাকার বনানী ও ক্যান্টনমেন্ট থানাধীন এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে নারায়ণগঞ্জ জেলার ফতুল্লা থানার মামলা নং-১০৫ তারিখ ২৯ জুলাই ২০১৭ এর এজাহার নামীয় পলাতক আসামী মোঃ মামদুদুর রহমান ওরফে মাহমুদুল হাসান ওরফে মিশু ওরফে হেলাল(২৮) কে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। এ সময় তার অফিসের থেকে বিপুল সংখ্যক জঙ্গীবাদী সামরিক প্রশিক্ষন সংক্রান্ত নোটসীট ও লিফলেট জব্দ করা হয়। পরবর্তীতে ক্যান্টনমেন্ট থানাধীন মানিকদী এলাকায় অবস্থিত তার বাসায় তল্লাশী করে জঙ্গীবাদে উদ্ধুদ্ধ করার কাজে ব্যবহƒত বেশ কিছু বই জব্দ করা হয়।

র‌্যাব জানায় , মোঃ মামদুদুর রহমান ২০১৩ সালে ঢাকার একটি বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় হতে ইনফরমেশন এন্ড টেলিকমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে ¯œাতক পাশ করে বনানী এলাকায় একটি ট্রাভেল এজেন্সিতে চাকরি করত। ২০১৫ সালে সে ইতিপূর্বে র‌্যাব-১১ কর্তৃক গ্রেফতারকৃত মোহাম্মদ ওয়ালীউল্লাহ চিশতী এর হাত ধরে জঙ্গীবাদে যুক্ত হয় এবং পরবর্তীতে জনৈক শায়েখ আরিফ হোসেন এর মাধ্যমে জেএমবি (সারোয়ার-তামীম) গ্রুপে যোগদান করে। সে ২০১৬ সালের প্রথম দিকে সে জনৈক তারেক ওরফে সাকিব এর মাধ্যমে জেএমবি (সারোয়ার-তামীম) গ্রুপের সামরিক শাখায় যোগ দেয় এবং সাকিবের তত্ত্বাবধানে সামরিক প্রশিক্ষন গ্রহণ করে। ইতিপূর্বে র‌্যাব-১১ কর্তৃক গ্রেফতারকৃতদের দেয়া তথ্য এবং তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী সে ঢাকা, লালমনিরহাট, কুড়িগ্রাম, বগুড়া এবং জামালপুরের বিভিন্ন এলাকায় সংগঠনের জন্য দাওয়াতী এবং সামরিক শাখার সদস্য সংগ্রহের কাজ করে আসছিল। এছাড়াও সে সংগঠনের জন্য নিয়মিত ইয়ানত প্রদান করত এবং ইতিপূর্বে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী কর্তৃক গ্রেফতারকৃত সংগঠনের সদস্যদের পরিবারকে আর্থিক সহায়তা প্রদান করত। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে আরও স্বীকার করে যে, তার বাসায় প্রায়ই সংগঠনের প্রশিক্ষণ পরিচালিত হত এবং সংগঠনের কাজ পরিচালনার জন্য গোপন বৈঠকের আয়োজন করা হত।



উত্তরানিউজ২৪ডটকম / MRR

recommend to friends
  • gplus

পাঠকের মন্তব্য

ফেসবুকে আমরা