neta

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আইনে স্মাতক ও মাস্টার্স ডিগ্রি অর্জন করে মানব সেবার ব্রত নিয়ে দেশের সর্বোচ্চ আদালতের আইনজীবী হয়েছি। ছোটবেলা থেকেই শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানকে অনুসরণ করেছি। জিয়াউর রহমানের আদলে নিজেকে মানুষের সেবার নিয়োজিত থাকার চেষ্টা করেছি। সন্ত্রাস, মাদক, অনিয়ম ও দুর্নীতি বহু আগে থেকেই অপছন্দ করি। ভবিষৎতেও মাদক ও সন্ত্রাসের বিপক্ষে লড়ে যেতে চাই।বিডি২৪লাইভ ডটকমের সাথে একান্তে এসব কথা বলেন তিনি।

বরগুনা জেলার পাথরঘাটা উপজেলার পূর্ব কালমেঘা গ্রামের মোঃ আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে অ্যাডভোকেট সগীর হোসেন লিওন আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী। তিনি বরগুনার-২ (বেতাগী, বামনা, পাথরঘাটা) আসনে নির্বাচন করার জন্য খালেদা জিয়ার কাছে মনোনয়ন চাইবেন।

তিনি বলেন, বাবার অনুপ্রেরণায় দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপিঠ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে উচ্চতর ডিগ্রি অর্জন করেছি। ১৯৯৪ সালে কালমেঘা মুসলিম মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে স্টার নম্বরসহ প্রথম বিভাগে উত্তীর্ণ হয়ে বরিশাল সরকারি সৈয়দ হাতেম আলী কলেজে ভর্তি হয়েছি। জিয়াউর রহমানের আদর্শ ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার আপোষহীণ নেতৃত্বের প্রতি মুগ্ধ হয়ে ছাত্রজীবনে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত হয়েছি।

১৯৯৬ সালে একই কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে প্রথম বিভাগে উত্তীর্ণ হয়ে ১৯৯৭ ইং সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগে স্মাতকে ভর্তি হন সগীর হোসেন লিওন। সফলতার সাথে ২০০১ সালে অনার্স এবং ২০০২ সালে মাস্টার্স পরীক্ষায় দ্বিতীয় শ্রেণীতে উত্তীর্ণ হন মেধাবী ও পরিশ্রমী এই আইনজীবী।

কঠোর পরিশ্রমী এই আইনজীবী ২০০৪ সালে বাংলাদেশ বার কাউন্সিল সনদ গ্রহন করে দক্ষিণ এশিয়ার বৃহত্তর আইনজীবী সমিতি হিসেবে পরিচিত ঢাকা বারের সদস্য হিসেবে কাজ শুরু করেন। এরপর ২০০৭ সালে বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টে ওকালতি করার অনুমতি পান বিএনপিপন্থী এই আইনজীবী। শুধু আইনী পেশা নয়, দলকে সুসংগঠিত করতে যুক্ত হন জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের রাজনীতির সাথে। বর্তমানে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম সুপ্রীম কোর্ট শাখার যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন তিনি। নিজ জেলায় জাতীয়তাবাদী আদর্শকে প্রচার ও প্রসারের জন্য কাজ করছেন বরগুনা জেলা বিএনপির সহ-আইনবিষয়ক সম্পাদক হিসেবে।

তিনি আশা প্রকাশ করে বলেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও দলের ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান আমাকে বরগুনার-২ (বেতাগী, বামনা, পাথরঘাটা) আসনে নির্বাচন করতে মনোনয়ন দেবেন। মনোনয়ন পেয়ে নির্বাচিত হলে আমি এলাকার মাদক সন্ত্রাস অন্যায় দুর্নীতির বিরুদ্ধে সোচ্চার ভূমিকা পালন করবো। এলাকার বেকার যুবকদের জন্য কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে কাজ করবো।

তিনি বলেন, দক্ষিণবঙ্গের এ আসনটি দলের জন্য দেশের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এ গুরুত্বপূর্ণ আসনে আমাকে মনোনয়ন দিলে আমি সমাজের সকল শ্রেণীর মানুষের হয়ে কাজ করবো। বিশেষ করে এলাকার শিক্ষিত যুবকদের কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে কাজ করবো। দলের দুর্দিনে চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া, মহাসচিব ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম-মহাসচিব আমানুল্লাহ আমান, ছাত্রদল সভাপতি আব্দুল কাদের ভুঁইয়া জুয়েলসহ বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদল, কৃষকদলসহ সকল অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীদের পক্ষে আইনী লড়াই করেছি। আইন অঙ্গনের পাশাপাশি ব্যক্তিগত, রাজনৈতিক ও সামাজিক জীবনের বিভিন্ন কাজে আমাকে সার্বিক সহযোগিতা করছেন স্ত্রী আফিয়া জাহান তানিয়া।



উত্তরানিউজ২৪ডটকম / টি/কে

recommend to friends
  • gplus

পাঠকের মন্তব্য

ফেসবুকে আমরা