Chal

আগামী তিন মাস (ভাদ্র, আশ্বিন ও কার্তিক) আবারও ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিক্রি করা হবে বলে জানিয়েছেন কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী। তিনি বলেন, কিছুদিন আগে ১০ টাকা দামে ৩০ কেজি করে চাল বিক্রি করেছি। হাওর এলাকায় এখনও চাল বিক্রি হচ্ছে। আজ শুক্রবার বিকেলে রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে বাজেট-পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে কৃষিমন্ত্রী এসব কথা বলেন। মতিয়া চৌধুরী বলেন, সরকার মজুদ বাড়াচ্ছে এবং সেটি মানুষের ক্রয়ক্ষমতার ভেতরেই থাকবে। সরকারের চাল সংগ্রহ নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, চালের দাম বাড়লেও ক্রয়ক্ষমতার মধ্যেই আছে। মানুষ কিনে খাচ্ছে। এটা নিয়ে মানুষের মধ্যে কোনো উচ্চবাচ্য নেই।

বর্তমান বাজারে চালের দাম বৃদ্ধির কারণ সম্পর্কে কৃষিমন্ত্রী বলেন, চালের দাম কিছুটা বেড়েছে। হাওরে দুর্যোগ দেখা দেওয়ায় সেখানে ধানের উৎপাদন অনেক কমে যাবে। বহু ফসল পানির নিচে চলে গেছে। আমরা কিছুদিন আগে ১০ টাকা দামে ৩০ কেজি করে চাল বিক্রি করেছি। আগামী তিন মাস (ভাদ্র, আশ্বিন ও কার্তিক) আবারো একই দামে চাল দেওয়া হবে। আমরা আউশ উৎপাদনের ওপর জোর দিয়েছি। জিটুজি পদ্ধতিতে চাল আমদানির কথা ভাবছি। চালের দাম ক্রয় ক্ষমতার বাহিরে চলে গেছে এটা বলার সুযোগ নেই।

এর আগে গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে জাতীয় সংসদে চলতি অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট উপস্থাপন করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। এবারের বাজেটের আকার চার লাখ ২৬৬ কোটি টাকার। ওই দিন সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিপরিষদের এক বিশেষ সভায় এ বাজেট অনুমোদন দেওয়া হয়। একই সঙ্গে চলতি অর্থবছরের সম্পূরক বাজেটও পেশ করেন অর্থমন্ত্রী। এবারের বাজেটের প্রতিপাদ্য স্লোগান হিসেবে রয়েছে উন্নয়নের মহাসড়কে বাংলাদেশ,  সময় এখন আমাদের।

এবারের রাজস্ব আয়ের একটি বড় অংশ আসবে মূল্য সংযোজন কর (ভ্যাট) থেকে। যদিও এ নিয়ে ক্ষোভ রয়েছে ব্যবসায়ীদের। এ বাজেটে কার্যকর হতে যাচ্ছে নতুন ভ্যাট আইন। বহুল আলোচিত এই আইনে ভ্যাটের হার ১৫ শতাংশ নির্ধারিত হবে। বাজেটে ভ্যাট থেকে রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হচ্ছে ৮৭ হাজার ৮৮৭ কোটি টাকা, যা চলতি অর্থবছরের মূল লক্ষ্যমাত্রা থেকে ১৫ হাজার ১২৩ কোটি টাকা বেশি।

আগামী অর্থবছরের বাজেটের আকার চলতি বাজেটের চেয়ে প্রায় ২৬ ভাগ বেড়েছে। চলতি অর্থবছরের বাজেট তিন লাখ ৪০ হাজার ৬০৫ কোটি টাকা। সংশোধিত বাজেট তিন লাখ ১৭ হাজার ১৭৮ কোটি টাকা। এই টাকা থেকে ৮৪ হাজার কোটি টাকা বাড়িয়ে আগামী অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট উপস্থাপন করেন অর্থমন্ত্রী। এবারের বাজেটের ঘাটতির পরিমাণ এক লাখ কোটি টাকা ছাড়িয়ে যাওয়ার কথা জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী।



উত্তরানিউজ২৪ডটকম / টি/কে

recommend to friends
  • gplus

পাঠকের মন্তব্য

ফেসবুকে আমরা