probin-kollan48_n.jpg

রাজধানী উত্তরায় সোনারগাঁও জনপদ এভিনিউ ২৪, বাকারু রেস্টুরেস্টে মিট দ্যা সিনিয়র’স শীর্ষক মতবিনিময় সভা ২৫ মার্চ, ২০১৭ সন্ধা ৭ টায় অনুষ্টিত হয়। সভার আয়োজন করে গ্রীন গোল্ড সোসাইটি। অনুষ্ঠান সহযোগিতায় ছিল রাইট ফাস্ট। অনুষ্ঠানটি দুটি পর্বে সম্পন্ন হয়। প্রথম পর্বে ছিল ২৫ মার্চ গণহত্যা দিবস এর উপর আলোচনা। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন সাবেক সচিব(পররাস্ট্র মন্ত্রনালয়)ও প্রক্ষাত কলামিষ্ট মহিউদ্দিন আহমেদ। সাবেক সচিব ও রাস্ট্রদুত সোহরাব হোসেন। বিশিষ্ট মৃত্তিকা বিজ্ঞানি ড. আব্দুল মজিদ মিয়া ও উপস্থিত অন্যান্য বিশিষ্টজন।আলোচনা শেষে ১৯৭১ সালে ২৫ মার্চ কালো রাতে পাকিস্থানী বাহিনীর হাতে হত্যাকান্ডের শিকার শহীদদের আত্মার প্রতি মাগফেরাত কামনায় বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

২য় পর্বে সিনিয়র সিটিজেন ক্লাব গঠনের লক্ষে আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন গ্রীন গোল্ড সোসাইটির সভাপতি মাছুমা বেগম, কো-চেয়ারম্যান ছিলেন রাইট ফাস্ট এর সভাপতি মাইন উদ্দিন আহমেদ জাহাঙ্গীর। তিনি প্রথমেই শুভেচ্ছা বক্তব্য প্রদান করেন। সিনিয়র সিটিজেন ক্লাব গঠনের লক্ষে এর লক্ষ, উদ্দেশ্য ‍ও ভবিষৎ কর্ম পরিকল্পনা সম্পর্কে আলোকপাত করেন গ্রীন গোল্ড সোসাইটির নির্বাহী পরিচালক মো: আবু বকর সিদ্দীক। এ বিষযে আলোচনা শেষে বৃত্তবান ও বৃত্তহীন ষাট বয়সের উপরে প্রবীন নাগরিকদের কল্যাণে কাজ করার জন্য একটি প্লাটফর্ম তৈরির বিষয়ে উপস্থিত সকলেই ঐক্যমত পোষন করেন।উন্মুক্ত আলোচনায় প্রবীনদের সুখ-দুঃখ, হাসি-আনন্দ-বেদনা, প্রবীন অধিকার সুরক্ষায় একটি অরাজনৈতিক, অলাভজনক ও সেচ্ছাসেবী উন্নয়ন সংগঠন প্রতিষ্ঠা করা জরুরী বলে বক্তাগণ উল্লেখ করেন। প্রতিষ্ঠানটি যেন জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে কাজ করতে পারে এবং সরকারের প্রবীনদের জন্য গৃহীত কর্মসূচী বাস্তবায়নে অগ্রনী ভুমিকা পালন করতে পারে সে জন্য সংগঠনের একটি সুন্দর নাম ‍ও নিবন্ধন কর্তৃপক্ষের নিবন্ধন গ্রহণ করার বিষয়েও সকলেই অভিমত প্রকাশ করেন।

 

সংগঠনের পরবর্তী কার্যক্রম সুস্ঠু ও সুন্দর ভাবে পরিচালনা এবং এর প্রসারতা বৃদ্ধির জন্য উপস্থিত সদস্যদের মধ্য থেকে অধ্যাপক ড. এ আর খান, অধ্যাপক শাহজাহান, ডা. মইন উদ্দিন আহমেদ, ড. আব্দুল মজিদ মিয়া, অধ্যাপক কামাল উদ্দিন, হোসনেআরা আলী, মেজর(অব)সালাম, খন্দকার ছালাম, শিপ্রা রহিম, আলেয়া হায়দার, ডা: আব্দুল হামিদ পিএইসডি, ইন্জিনিয়ার আব্দুল মমিন, আব্দুল ওয়াহাব, আবদুল মন্নাফসহ বিশিষ্টজন বক্তব্য রাখেন।

সাবেক সচিব ও রাস্ট্রদুত সোহরাব হোসেন তার বক্তব্যে বলেন সংগঠনের আদর্শ, লক্ষ, উদ্দেশ্য ও গঠনতন্ত্র থাকতে হবে। সংগঠনের নিবন্ধন নিতে হবে। প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব আয়ের উৎস সৃষ্ঠি করতে হবে। সদস্য পদ লাভের জন্য সদস্যদের যোগ্যতা নির্ধারন করতে হবে। সিনিয়র সিটিজেনদের রাস্ট্রীয় সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করার জন্য সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে।

সংগঠনটিকে কার্যকর ও টেকসই প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তোলার জন্য সাবেক সচিব ও বিশিষ্ট কলাম লেখক মহি উদ্দিন আহমেদ বলেন সংগঠন করলেই হবে না সংগঠনকে ঠিকিয়ে রাখতে হবে। সংগঠনের নিবন্ধন নিতে হবে। আইন পেশায় জড়িত ব্যক্তিবর্গের পরামর্শ নিতে হবে। প্রয়োজনে বাংলাদেশের জাতীয় প্রতিষ্ঠান প্রবীণ হিতষী সংগের নিকট থেকে পরামর্শ নেয়া যেতে পারে। প্রবীদের কল্যানে এবং প্রবীনদের অধিকার আদায়ের লক্ষে বলিষ্ঠ ভুমিকা রাখার আহবান জানান তিনি।

সংগঠনের পরবর্তী কার্যক্রম চলমান রাখার জন্য সর্ব সম্মতি ক্রমে একটি এডহক কমিটি গঠন করা হয়। কমিটি সদস্য নিম্নরুপ: আহবায়ক- সোহরাব হোসেন , সদস্য- ড. এ আর খান, হোসনেআরা আলী, ডা: মাঈন উদ্দীন আহমেদ, ড. আব্দূল মজিদ, মেজর(অব) এম এ সালাম, অধ্যাপক শাহজাহান, এম এ আউয়াল, মাছুমা আক্তার, মাইন উদ্দিন আহমেদ জাহাঙ্গীর, খন্দকার আব্দস ছালাম, শিপ্রা রহিম এবং সদস্য সচিব মো: আবু বকর সিদ্দীক। নতুন কমিটি কর্তৃক আশু কর্মসূচী হিসেবে সংস্থার  খসড়া গঠনতন্ত্র প্রনয়ন, সদস্য ভর্তি, ব্যাংক হিসাব খোলা, অবসর প্রাপ্ত প্রবীনদের পেনশন উত্তোলনে সোনালী ব্যাংকে আলাদা বসার জন্য মান সম্মত সোফা, চেয়ার এর ব্যব্স্থাকরাসহ দ্রুত সেবা নিশ্চিত করার জন্য সংস্লিষ্ঠ কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষন করার ব্যাপারে উদ্যোগ গ্রহণ করবের। প্রবীনদের হসপিটাল, সকল পাবলিক সার্ভিস, সুপারমল, শপিংমলে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে সেবার ব্যবস্থা করার জন্য এডভোকেসী কার্যক্রম গ্রহণ করবে।

সভায় সকল সদস্যদের উপস্থিতিতে আবদুল মোতালেব গাজীপুর বোর্ড বাজার এলাকায় দুই কাটা জমি প্রবীনদের কল্যাণে দান করার ঘোষনা দেন। অবসর প্রাপ্ত সরকারী কর্মীদের সোনালী ব্যাংক উত্তরা শাখায় বসার জন্য সোফা/চেয়ার প্রদানে সহযোগিতার প্রতিশ্রুতিদেন বিশিষ্ট সমাজকর্মী নওজাত সরোয়ার, সভাপতি লায়ন্স ক্লাব অব বাংলাদেশ ঢাকা আইডিয়ার্স-৩১৫ এ ওয়ান। বাকারু রেস্টুরেন্টের মালীক প্রবীনদের জন্য সিনিয়র কর্ণার বরাদ্ধ দেন। বাকারু রেস্টুরেন্টে সকল প্রবীনদের ৩০ ভাগ হ্রাসকৃত মুল্যে খাবার পরিবেশনের ঘোষনাদেন। এবং সংস্থার সকল সদস্যদের ডিজিটাল কার্ড প্রদান করবেন বলে আশ্বাস প্রদান করেন।

সভাপতি তার সমাপনি ভাষণে সকলকে উক্ত সভায় উপস্থিত থেকে গুরুত্বপূর্ণ মতামত ও সমর্থনের জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে সভার সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

উক্ত অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন মোঃ আজহার আলী মিয়া, পরিচালক, গ্রীন গোল্ড সোসাইটি এবং মাহাবুব আলম, জেনারেল সেক্রেটারী, রাইট ফাস্ট।

অনুষ্ঠান শেষে বাকারু রেস্টুরেন্টে প্রবীনদের জন্য সিনিয়র কর্ণার উদ্ধোধন করা হয়। জানামতে দেশের এই প্রথম কোন রেস্টুরেন্টে ‍সিনিয়র কর্ণার স্থাপিত হলো।



উত্তরানিউজ২৪ডটকম / আ/ম

recommend to friends
  • gplus

পাঠকের মন্তব্য

ফেসবুকে আমরা